সাদা পোশাকের স্বপ্নে ‘রঙিন’ রশিদ

বড্ড ঝামেলায় পড়েছেন রশিদ খান। টানা ক্রিকেট খেলার চাপে দেশেই যাওয়া হচ্ছে না তাঁর। ‘আগে একটু সময় পাই, বাড়ি যাই। তারপর বাড়ির লোকজনের সঙ্গে কথা বলে দেখব, কী করা যায়!’ কী সে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, পরিবারের সঙ্গে আলোচনা না করলে চলছেই না আফগান লেগ স্পিনারের? ব্যাপারটা ‘সামান্য’ই, আইপিএল থেকে যে ৪ কোটি রুপি পাচ্ছেন, সেটা কীভাবে খরচ করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না রশিদ!
ঠিক যেমন রশিদের বলগুলো বুঝতেই পারছেন না ব্যাটসম্যানরা। এবারের আইপিএলের সবচেয়ে বড় চমক ছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের রশিদকে কেনা। দুটি ম্যাচ খেলার পরও ব্যাপারটা এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না তাঁর, ‘ইমরান তাহিরের নাম এল, চলেও গেল। আমি তাই চিন্তায় ছিলাম, তাঁকেই যদি কেউ না নেয়, তাহলে আমি কীভাবে সুযোগ পাই?’ টি-টোয়েন্টি র্যা ঙ্কিংয়ের শীর্ষ বোলার অবিক্রীত থাকলে চিন্তা হতেই পারে।

হাজার হলেও দক্ষিণ আফ্রিকান তাহিরও যে লেগ স্পিনার। তবে রশিদ ঠিকই সুযোগ পেয়েছেন। দুই ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে গত পরশু পর্যন্ত টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ উইকেটও তাঁর। রানটা একটু বেশি খরচ করে দুইয়ে আছেন বদলি হিসেবে পরে পুনেতে সুযোগ পাওয়া তাহির!
রশিদ একা নন, এত দিন আফগান ক্রিকেটের ‘পোস্টার বয়’ হয়ে থাকা মোহাম্মদ নবীও আছেন এবারের আইপিএলে। হায়দরাবাদ দলেই। খেলার সুযোগটা যেমন রশিদ আগে পেয়েছেন, আলোচনাতেও এগিয়ে এই লেগ স্পিনার। এতে অবশ্য অভ্যস্ত রশিদ। মাত্র ১৭ বছর বয়সে আন্তর্জাতিক অভিষেক; দুর্দান্ত লেগ স্পিন, ছদ্মবেশী গুগলি আর বয়সের তুলনায় অনেক পরিণত মস্তিষ্ক—আফগানিস্তান ক্রিকেটের বর্তমান বলুন কিংবা ভবিষ্যৎ—সবকিছুই তো এখন রশিদ খান।
এবারের আইপিএলে সুযোগ পাওয়াটাও তো এ সহজ সত্যটার স্বীকৃতি, ‘এত বড় বড় নাম—ওয়ার্নার, যুবরাজ, উইলিয়ামসনের সঙ্গে খেলা, এটা অসাধারণ অভিজ্ঞতা। এত চমৎকার দলের অংশ হতে পারাটা দেখিয়ে দিল আমারও কিছু আছে, আমিও কিছু দিতে পারি।’ প্রথম কোনো সহযোগী দেশের ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়ে আসলেই দেখিয়ে দিয়েছেন রশিদ।
তবে রশিদের স্বপ্নটা আরও বড়, ‘লক্ষ্য হলো, আমার দেশের হয়ে টেস্ট খেলা। এটাই আমার মূল লক্ষ্য, টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে পরিচয় দিতে পারা।’ সে পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে আফগানিস্তান। গত মাসে আইসিসির ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপে আয়ারল্যান্ডকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়ে টেস্ট স্ট্যাটাস প্রাপ্তির দাবিটা জানিয়ে রেখেছে তারা। ম্যাচে ৮ উইকেট করে নিয়ে রশিদ ও নবীই রেখেছেন তাতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা। রশিদদের স্বপ্ন এখন আকাশ ছোঁয়ার, সাদা পোশাকে পাঁচ দিনের ক্রিকেট খেলার।

 

নাসিম  হোসেন

প্রতিবেদক, টাইগার ক্রিকেট।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s