“ডাবলিনে আজ মুখোমুখি বাংলাদেশ–নিউজিল্যান্ড”

f56f5bbdeef4127d98f5525f89b57dd4-591b52b22152d.jpg

একবার, দুইবার করে বারবার। জয় কেবলই সুবাস ছড়িয়ে হারিয়ে গেছে। গত ডিসেম্বর-জানুয়ারির নিউজিল্যান্ড সফর বাংলাদেশ দলের জন্য হয়ে আছে আফসোসের সফর। আজ আবারও সামনে সেই নিউজিল্যান্ড। ভিন্ন উপলক্ষ, ভিন্ন পরিস্থিতি। এবার কি পারবে বাংলাদেশ?

ডাবলিনের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট ক্লাব মাঠে বাংলাদেশের আশার বেলুনটা আজ একটু ফুলেই থাকার কথা। টম ল্যাথামের দলের নাম ‘নিউজিল্যান্ড’ হলেও সর্বশেষ সিরিজের নিউজিল্যান্ডের মতো নামে ভারী নয়। ওই দলের কেন উইলিয়ামসন, কোরি অ্যান্ডারসন, মার্টিন গাপটিলরা নেই আয়ারল্যান্ডের ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে। ল্যাথামের তবু প্রত্যাশা, এই সিরিজ দিয়ে তরুণ খেলোয়াড়েরা নির্বাচকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করুক। সিরিজটা সে জন্যই আরও বেশি করে জিততে চান কিউই অধিনায়ক।

তরুণ দল নিয়ে ল্যাথাম ওই স্বপ্ন দেখলে মাশরাফি বিন মুর্তজার স্বপ্নের পরিধি হওয়া উচিত আরও বড়। ম্যাচের ভেন্যু ক্লনটার্ফ মাঠে অনুশীলন শেষে কাল বাংলাদেশ অধিনায়কের কণ্ঠেও সেই আশার কথা, ‘আমাদের প্রথম লক্ষ্য অবশ্যই জয়। সব ম্যাচই জিততে চাইব। এখানে সুযোগ-সুবিধা হয়তো ও রকম মানসম্মত ছিল না। এর মধ্যেই আমরা ভালোভাবে প্রস্তুতি নেওয়ার চেষ্টা করেছি।’

উইলিয়ামসন-অ্যান্ডারসনরা নেই বলে নিউজিল্যান্ডের এই দলকে অবজ্ঞাও করছেন না মাশরাফি। উল্টো সাবধান করে দিলেন রস টেলরের কথা বলে। নিউজিল্যান্ড সফরের ওয়ানডে সিরিজে ছিলেন না, তবে এই দলে আছেন ১৮৪টি ওয়ানডের অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ রস টেলর। প্রথম ম্যাচে ফিফটি করে প্রমাণ দিয়েছেন ফর্মেরও।

নিউজিল্যান্ড দল যেমনই হোক, ২০১০ থেকে তাদের বিপক্ষে সিরিজ মানেই বাংলাদেশ দলের জন্য ভালো কিছুর আশা। ২০১০ ও ২০১৩ সালে নিজেদের মাঠে পরপর দুই সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে ধবলধোলাই করেছে বাংলাদেশ। অবশ্য ঘরের মাঠে বাংলাদেশকে পেয়ে নিউজিল্যান্ডও ছাড়েনি। হ্যামিলটনে ২০১৫-এর বিশ্বকাপ, এরপর গত ডিসেম্বর-জানুয়ারির সিরিজে ক্রাইস্টচার্চ ও নেলসনে কিউইরাও দেখিয়ে দিয়েছে নিজেদের শক্তি।

তবে এবারের লড়াই নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বিদেশের মাটিতে প্রথম জয় পাওয়ার স্বপ্ন দেখা তাই অস্বাভাবিক নয় বাংলাদেশ দলের জন্য। সেটি আজ হতে পারে, হতে পারে ২৪ মে দুই দলের দ্বিতীয় ম্যাচেও। তবে সিরিজ জয়ের লক্ষ্য পূরণ করতে হলে জয়টা আজই দরকার বাংলাদেশের। বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত প্রথম ম্যাচ থেকে বাংলাদেশ পেয়েছে দুই পয়েন্ট। অন্যদিকে আয়ারল্যান্ডকে ৫১ হারিয়ে নিজেদের প্রথম ম্যাচ থেকে পুরো ৪ পয়েন্ট তুলে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড।

সিরিজে এখনো পুরো একটা ম্যাচ খেলতে না পারায় প্রথম ম্যাচের খণ্ডিত অভিজ্ঞতাই কাজে লাগাতে হচ্ছে মাশরাফিকে, ‘ওই দিন বুঝতেই পারছিলাম না, কোন উইকেটে খেলা হবে। দ্রুত উইকেট পড়ার পরও রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ও তামিম যেভাবে ব্যাটিং করেছে, এটাই আসলে বাস্তবতা। এ ধরনের কন্ডিশনে দ্রুত ২-৩ উইকেট পড়ে যেতে পারে। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। ওই ধরনের উইকেটই হয়তো হবে। থিতু হতে পারলে এখানেও ২৭০ থেকে ৩০০ রান তোলা সম্ভব।’ প্রথম ম্যাচের অভিজ্ঞতার কারণে বৃষ্টির চিন্তাটাও রাখতে হচ্ছে মাথায়। মাঝের এই কয়দিনে অনুশীলনেও বাগড়া দিয়েছে আবহাওয়া।

‘স্লো ওভার রেটে’র জন্য এক ম্যাচ বহিষ্কৃত থাকায় সিরিজের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারেননি মাশরাফি। আজ তিনি ফেরায় একাদশের বাইরে থাকবেন তাসকিন আহমেদ ও রুবেল হোসেনের মধ্যে একজন। মাশরাফির কাছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আবেদন থাকতে পারে অন্য একটি কারণেও। ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে এই নিউজিল্যান্ডই তাঁকে ‘উপহার’ দিয়েছিল চরম দুঃস্বপ্ন। ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে টানা ষষ্ঠ হারের দিন হাতে চোট পেয়ে ছিটকে যান মাঠ থেকেই। নিজের বলে অ্যান্ডারসনের জোরালো ড্রাইভ ঠেকাতে গিয়ে ফেটে যায় মাশরাফির ডান হাতের বুড়ো আঙুল।

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s